সর্বশেষ নবির আনুগত্যের গুরুত্ব


সুন্নাতের আনুগত্যের গুরুত্ব দ্বীনের অংশ। একজন পূর্বতন বিদ্বান, ইমাম মালিক বলেন : সুন্নাত নূহের কিস্তির ন্যায়। যে কেউ তাতে আরোহণ করবে সে নিস্তার পাবে এবং যে তা প্রত্যাখ্যান করবে সে জলমগ্ন হবে”। উক্তিটি শায়খুল ইসলাম ইবনে তাইমিয়ার মাজ্‌মুউল ফাতাওয়া (৪/৫৭) হতে গৃহীত। নবি মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়া সাল্লাম বলেছেন : যে ব্যক্তি আমার আনুগত্য করবে সে জান্নাতে প্রবেশ করবে এবং যে আমার অবাধ্যতা করবে সে জান্নাতে প্রবেশ করতে অস্বীকার করবে”। (সহি বুখারি –ইংরেজি অনুবাদ ৯:৩৮৪) [১]

 

বিষয়সূচি

 

নবি মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়া সাল্লামের নবুঅতের প্রতি ঈমান (বিশ্বাস)

মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়া সাল্লামের নবুঅতের প্রতি বিশ্বাস স্থাপন একজন মুসলমানের ঈমানের অঙ্গ।

 

রসূলুল্লাহ্‌ সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়া সাল্লাম বলেছেন : “ইসলাম পাঁচটি স্তম্ভের উপর প্রতিষ্ঠিত : এই সাক্ষ্য দেয়া যে, আল্লাহ্‌ ব্যতীত কেউ ইবাদতের যোগ্য নয় এবং মুহাম্মাদ আল্লাহ্‌র রসূল, …………। (সহি বুখারি ১:৮, সহি মুস্‌লিম ১:৬)  

 

নবি মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়া সাল্লামের সিদ্ধান্তের স্বীকৃতি  

আন্তরিক বিশ্বাসের একটি অঙ্গ হলো রসূলুল্লাহ্‌ সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়া সাল্লামের সিদ্ধান্ত ও তাঁর সুন্নাতকে মেনে নেয়া।

 

আল্লাহ্‌ তাআলা বলেন :

{فَلَا وَرَبِّكَ لَا يُؤْمِنُونَ حَتَّىٰ يُحَكِّمُوكَ فِيمَا شَجَرَ بَيْنَهُمْ ثُمَّ لَا يَجِدُوا فِي أَنفُسِهِمْ حَرَجًا مِّمَّا قَضَيْتَ وَيُسَلِّمُوا تَسْلِيمًا}

 

“অতএব তোমার প্রতিপালকের শপথ, তারা বিশ্বাসী হতে পারবে না, যতক্ষণ না তারা তোমাকে তাদের আভ্যন্তরীণ বিরোধের বিচারক হিসেবে মেনে নেয়; তৎপর তুমি যে সিদ্ধান্ত দেবে সেবিষয়ে তাদের মনের মধ্যে কোনো সংকীর্ণতা থাকবে না এবং তা হূষ্টচিত্তে মেনে নেবে”। [সূরা নিসা ৪:৬৫]

 

 

সুন্নাত অনুসরণের মাধ্যমে আল্লাহ্‌র ভালোবাসা অর্জন

শুধুমাত্র রসূলুল্লাহ্‌ সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়া সাল্লামের সুন্নাতের অনুসরণের মাধ্যমে আল্লাহ্‌ তাআলার ভালোবাসা অর্জন করা সম্ভব। আল্লাহ্‌ তাআলা বলছেন :

{قُلْ إِن كُنتُمْ تُحِبُّونَ اللَّـهَ فَاتَّبِعُونِي يُحْبِبْكُمُ اللَّـهُ وَيَغْفِرْ لَكُمْ ذُنُوبَكُمْ ۗ وَاللَّـهُ غَفُورٌ رَّحِيمٌ}

 

“বলে দাও, (হে মুহাম্মাদ!) যদি তোমরা সত্যিসত্যিই আল্লাহ্‌কে ভালোবাসো তাহলে আমার অনুসরণ করো (অর্থাৎ ইসলামি একত্ববাদকে স্বীকার করো, কুর্‌আন ও সুন্নাতের অনুসরণ করো) তাহলে আল্লাহ্‌ তোমাদেরকে ভালোবাসবেন এবং তোমাদের পাপসমূহ ক্ষমা করে দেবেন। আর আল্লাহ্‌ মহাক্ষমাশীল ও পরম দয়ালু”। [সূরা আল-ইম্‌রান ৩:৩১]

                                                                                                               

কর্ম গ্রহণের শর্ত

কর্মের গ্রহণযোগ্যতার জন্য একটি উল্লেখযোগ্য শর্ত হলো যে, সেটা যেন সুন্নাত অনুযায়ী সুসম্পন্ন হয়।

 

রসূলুল্লাহ্‌ সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়া সাল্লাম বলেন : “যদি কোনো ব্যক্তি এমন কাজ করে যার প্রতি আমার নির্দেশ নেই, তাহলে তা প্রত্যাখ্যাত”। (সহি বুখারি ও সহি মুস্‌লিম)

 

অপর বর্ণনায় এসেছে : “যদি কোনো ব্যক্তি আমার এই দ্বীনের মধ্যে নতুন কিছু আবিষ্কার করে যা এর মধ্যে নেই, তাহলে তা প্রত্যাখ্যাত”। (সহি মুস্‌লিম)

 

সুন্নাতের বিরুদ্ধাচরণ যাবতীয় সমস্যার সূত্রপাত

আল্লাহ্‌ তাআলা বলছেন :

{فَلْيَحْذَرِ الَّذِينَ يُخَالِفُونَ عَنْ أَمْرِهِ أَن تُصِيبَهُمْ فِتْنَةٌ أَوْ يُصِيبَهُمْ عَذَابٌ أَلِيمٌ}

 

“এবং যারা তাঁর আদেশের (অর্থাৎ তাঁর সুন্নাত, নির্দেশাবলি, ইবাদতের কার্যাদি, বিবরণ ইত্যাদি) বিরুদ্ধাচরণ করে, তারা সতর্ক হোক যে, তাদের উপর ফিত্‌না (অবিশ্বাস, শাস্তি, দুঃখ-দুর্দশা, ভূমিকম্প, খুন, অত্যাচারীদের শাসন, ইত্যাদি) আপতিত হবে অথবা তাদের উপর এসে পড়বে যন্ত্রণাদায়ক শাস্তি”। [সূরা নূর ২৪:৬৩]  

 

সুন্নাতের বিরুদ্ধাচরণ পথভ্রষ্টতার কারণ

আল্লাহ্‌ তাআলা বলছেন :

{وَمَا كَانَ لِمُؤْمِنٍ وَلَا مُؤْمِنَةٍ إِذَا قَضَى اللَّـهُ وَرَسُولُهُ أَمْرًا أَن يَكُونَ لَهُمُ الْخِيَرَةُ مِنْ أَمْرِهِمْ ۗ وَمَن يَعْصِ اللَّـهَ وَرَسُولَهُ فَقَدْ ضَلَّ ضَلَالًا مُّبِينًا}

 

“যখন আল্লাহ্‌ ও তাঁর রসূল কোনো বিষয়ে মীমাংসা দিয়ে দেন তখন কোনো মু’মিন পুরুষ ও মু’মিন নারীর নিজেদের সিদ্ধান্ত দেয়ার কোনো এখতিয়ার থাকবে না; আর যে কেউ আল্লাহ্‌ ও তাঁর রসূলের অবাধ্য হবে সে তো স্পষ্টই পথভ্রষ্ট”। [সূরা আহ্‌যাব ৩৩:৩৬]

 

সুন্নাতের বিরুদ্ধাচরণ উম্মতের মধ্যে বিভাজন ও মতানৈক্যের চরম কারণ

আল্লাহ্‌ তাআলা বলেন :

{وَأَنَّ هَـٰذَا صِرَاطِي مُسْتَقِيمًا فَاتَّبِعُوهُ ۖ وَلَا تَتَّبِعُوا السُّبُلَ فَتَفَرَّقَ بِكُمْ عَن سَبِيلِهِ ۚ ذَٰلِكُمْ وَصَّاكُم بِهِ لَعَلَّكُمْ تَتَّقُونَ}

 

“আর এটাই আমার সরল পথ, সুতরাং তোমরা এ পথেরই অনুসরণ করো; এ পথ ছাড়া অন্যান্য পথের অনুসরণ করো না, অন্যথায় তোমাদেরকে তাঁর পথ হতে বিচ্ছিন্ন করে দূরে সরিয়ে দেবে। আল্লাহ্‌ তোমাদেরকে এই নির্দেশই দিলেন, যেন তোমরা মুত্তাকি হতে পারো”। [সূরা আন্‌আম ৬:১৫৩]

 

সুন্নাতের বিরুদ্ধাচরণ ইহকাল ও পরকালে লাঞ্ছনার পথ দেখায়

আল্লাহ্‌ তাআলা বলছেন :

{إِنَّ الَّذِينَ يُحَادُّونَ اللَّـهَ وَرَسُولَهُ أُولَـٰئِكَ فِي الْأَذَلِّينَ}

 

“যারা আল্লাহ্‌ ও তাঁর রসূলের বিরুদ্ধাচরণ করে, তারা হবে চরম লাঞ্ছিতদের অন্তর্ভুক্ত”। [সূরা মুজাদালাহ্‌ ৫৮:২০]

 

হাওযে কাওসার ও নবি সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়া সাল্লাম

যারা সুন্নাতের বিরুদ্ধাচরণ করবে, তাদেরকে নবি সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়া সাল্লামের হাওযের (প্রস্রবণের) নিকট হতে তাড়িয়ে দেয়া হবে।

 

রসূলুল্লাহ্‌ সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়া সাল্লাম বলছেন : “আমি তোমাদের পূর্ব হতেই হাওযে কাওসারের নিকট উপনীত থাকব। তোমাদের মধ্যে কিছু লোককে আমার নিকট আনা হবে। আমি যখন তাদেরকে পানি দেয়ার চেষ্টা করব, তখন আমার নিকট হতে তাদেরকে জোর করে টেনে নেয়া হবে। সেসময় আমি বলব : হে প্রভু ! আমার উম্মত ! তখন পরাক্রমশালী আল্লাহ্‌ বলবেন : তুমি জানো না, তোমার পর তারা কী কী করেছিল, তোমার পর তারা দ্বীনের মধ্যে নতুন নতুন জিনিস আবিষ্কার করেছিল”। (সহি বুখারি ও সহি মুস্‌লিম)

 

সুন্নাতের বিরুদ্ধাচরণ জাহান্নামের পথ

আল্লাহ্‌ তাআলা বলছেন :

{وَمَن يُشَاقِقِ الرَّسُولَ مِن بَعْدِ مَا تَبَيَّنَ لَهُ الْهُدَىٰ وَيَتَّبِعْ غَيْرَ سَبِيلِ الْمُؤْمِنِينَ نُوَلِّهِ مَا تَوَلَّىٰ وَنُصْلِهِ جَهَنَّمَ ۖ وَسَاءَتْ مَصِيرًا}

 

“আর যে ব্যক্তি তার নিকট সুপথ পরিষ্কার হয়ে যাওয়ার পর রসূলের বিরুদ্ধাচরণ করে এবং বিশ্বাসীদের বিপরীত পথের অনুগামী হয়, আমি তাকে তাতেই প্রত্যাবর্তিত করব যাতে সে অভিনিবিষ্ট এবং আমি তাকে জাহান্নামে নিক্ষেপ করব, আর সেটা নিকৃষ্টতম প্রত্যাবর্তনস্থল”। [সূরা নিসা ৪:১১৫]

 

তিনি আরও বলেন :

{ذَٰلِكَ بِأَنَّهُمْ شَاقُّوا اللَّـهَ وَرَسُولَهُ ۚ وَمَن يُشَاقِقِ اللَّـهَ وَرَسُولَهُ فَإِنَّ اللَّـهَ شَدِيدُ الْعِقَابِ}

 

“ওটা এজন্য যে, তারা আল্লাহ্‌ ও তাঁর রসূলের বিরুদ্ধাচরণ করেছে; আর যে ব্যক্তিই আল্লাহ্‌ ও তাঁর রসূলের বিরুদ্ধাচরণ করবে, (তার জানা উচিত যে) নিশ্চয়ই আল্লাহ্‌ কঠোর শাস্তি প্রদানকারী”। [সূরা আন্‌ফাল ৮:১৩ ও সূরা হাশ্‌র ৫৯:৪] [২]

 

তথ্যসূত্র

[১] http://www.islaamnet.com/whatissunnah.html

[২] http://foodiefahoodie.blogspot.in/2013/01/importance-of-sunnah-few points.html#more

166 Views
Correct us or Correct yourself
.
Comments
Top of page