আত্মহত্যা


সংজ্ঞা

আত্মহত্যা মানে ইচ্ছাকৃতভাবে নিজেকে নিজেই ধ্বংস করা বা হত্যা করা। [১]

 

বিষয়সূচি

 

সূচনা

আত্মহত্যা করা ইসলামে একটি জঘন্যতম মহাপাপ। পবিত্র কুরআনে উল্লেখ আছে : “আর তোমরা নিজেদেরকেহত্যা করো না। নিঃসন্দেহে আল্লাহ তা'আলা তোমাদের প্রতি দয়ালু”[সূরা নিসা ৪:২৯]আর যে কেউ এমন করবে আল্লাহ্‌ তাকে জাহান্নামের চিরস্থায়ী শাস্তির সতর্কবাণী দিয়েছেন। আল্লাহ্‌ তাআলা তাকে জাহান্নামে ওই অস্ত্র দ্বারা শাস্তি দেবেন যাদ্বারা সে আত্মহত্যা করবে। পবিত্র হাদিসে উল্লেখ আছে, আবু হুরাইরা (রা.) বর্ণনা করেছেন : রসূলুল্লাহ্‌ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন : “যে ব্যক্তি নিজেকে পাহাড়ের ওপর থেকে নিক্ষেপ করে আত্মহত্যা করে, সে জাহান্নামের মধ্যে সর্বদা ওইভাবে লাফিয়ে পড়ে নিজেকে নিক্ষেপ করতে থাকবে। যে ব্যক্তি বিষ পান করে আত্মহত্যা করে, সেও জাহান্নামের মধ্যে সর্বদা ওইভাবে নিজ হাতে বিষ পান করতে থাকবে। আর যেকোনো ধারালো অস্ত্র দ্বারা আত্মহত্যা করে, তার কাছে জাহান্নামে সেই ধারালো অস্ত্র থাকবে, যা দ্বারা সে সর্বদা নিজের পেট ফুঁড়তে থাকবে”। [সহি বুখারি : ৭/৬৭০ ও সহি মুসলিম : ১৯৯]

 

আনাস বিন মালিক (রা.) বর্ণনা করেন, রসূলুল্লাহ্‌ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন : “তোমাদের কেউ যেন আপতিত বিপদের কারণে মৃত্যু কামনা না করে।যদি কারও তা কামনাই করতে হয় তাহলে সে যেন বলে:হে আল্লাহ! বেঁচে থাকা যদি আমার জন্য কল্যাণকর হয় তাহলে তুমি আমাকে বাঁচিয়ে রাখোআর যদিমৃত্যু আমার জন্য কল্যাণকর হয় তাহলেআমাকেমৃত্যু দাও”। [সহি মুসলিম : ৬৪৮০] [২]

 

কুরআনের আলোকে আত্মহত্যা

ইসলামে আত্মহত্যা করা হারাম এবং একটি জঘন্য মহাপাপ। আল্লাহ্‌ তাআলা বলেছেন : “আর তোমরা নিজেদেরকেহত্যা করো না। নিঃসন্দেহে আল্লাহ তা'আলা তোমাদের প্রতি দয়ালু”[সূরা নিসা ৪:২৯]

 

আল্লাহ্‌ তাআলা আরও বলেন : “নিশ্চয় আমি তোমাদেরকে (কাউকে) ভয় ও ক্ষুধা দিয়ে, আর (কাউকে) ধনেপ্রাণে বা ফলফসলের ক্ষয়ক্ষতি দিয়ে পরীক্ষা করব। আর যারা ধৈর্যধারণ করেতাদেরকে তুমি সুসংবাদদাও।(তারাই ধৈর্যশীল) যারা তাদের উপর কোনো বিপদ নিপতিত হলেবলে: আমরা তো আল্লাহ্‌রই আর নিশ্চিতভাবে আমরা তাঁরই দিকে প্রত্যাবর্তন করব”।[সূরা বাকারা ২:১৫৫-১৫৬]

 

এই আয়াত থেকে স্পষ্ট যে, ইসলামের দৃষ্টিতে এই পার্থিব জীবন একটি পরীক্ষা। আত্মহত্যা করে মানুষ এই পরীক্ষায় বিফল হয়ে যায় এবং পরকালে তাকে তার কৃতকর্মের ফল পেতেই হবে। প্রত্যেক মুসলমানের জন্য অত্যাবশ্যক ধৈর্যধারণ করা এবং এ কথা বোঝা যে, এই পৃথিবীর কষ্ট ও কাঠিন্য কিছুই না, পরকালের শাস্তি তো অনেক বেশি ভয়ঙ্কর ও যন্ত্রণাদায়ক।

 

কোনো ঈমানদার ব্যক্তির জন্য আল্লাহ্‌র করুণা হতে নৈরাশ্য বৈধ নয়। পবিত্র কুরআনে উল্লেখ আছে, আল্লাহ্‌ তাআলা বলছেন : “বলো :হে আমার বান্দাগণ যারা নিজেদের উপর অত্যাচারকরেছ তোমরা আল্লাহর রহমত থেকে নিরাশ হয়ো না। নিশ্চয়ইআল্লাহ সমস্ত গোনাহ ক্ষমা করে দেবেন। তিনি ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু”।[সূরা যুমার ৩৯:৫৩]

 

 তাই আত্মহত্যা একটি মহাপাপ। আল্লাহ্‌ তাআলা বলেন : “নিশ্চয়ইআল্লাহর রহমত থেকে কাফের সম্প্রদায়ব্যতীত অন্য কেউ নিরাশ হয় না”। [সূরা ইউসুফ ১২:৮৭] [৩]

 

যদি মু’মিন ব্যক্তি সমস্ত সমস্যা ও কাঠিন্য সহ্য করে ধৈর্যধারণ করে, যেকোনো ক্ষেত্রে আল্লাহ্‌ তাআলার দিকে প্রত্যাবর্তন করে এবং ইবাদত ও সৎকর্মে প্রাণপন চেষ্টাসাধনা করে তাহলে বিপদও তার জন্য কল্যাণকর হয়ে যায়, তার পাপ মোচনের আশা থাকে। আর আশা করা যায় সে আল্লাহ্‌ তাআলার সাথে সাক্ষাত করবে, এমতাবস্থায় তার উপর পাপের কোনো বোঝা থাকবে না।

 

রসূলুল্লাহ্‌ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন : “কোনো ব্যথা, কষ্ট, অসুস্থতা বা বিষাদ, এমনকি কোনো দু:খ তার উপর আসে না কিন্তু তার কিছু মন্দ কর্ম ক্ষমা করে দেওয়া হয়”। [সহি মুসলিম : ৬২৪২] [৪]

 

আত্মঘাতী ব্যক্তির গোসল ও জানাযার সালাতের বিধান

আত্মঘাতী ব্যক্তিকে গোসল দেয়া, তার জানাযার সালাত আদায় এবং মুসলমানদের সাথে তাকে দাফন করা উচিত, কারণ সে একজন পাপী কিন্তু কাফির নয়। আত্মহত্যা একটি পাপ, কিন্তু কুফ্‌র নয়। তবে মুসলিম রাষ্ট্রনায়ক এবং গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের উচিত তার জানাযার সালাত না পড়া, যেন কেউ এটা ভেবে না বসে যে, তারা তার ক্রিয়াকলাপকে সমর্থন করছে। যদি খলিফা, শাসক, বিচারক, সভাপতি বা মেয়র প্রমুখ তার জানাযাহ্‌ আদায় না করে তার ক্রিয়াকলাপের প্রতি ঘৃণা প্রকাশ করার জন্য এবং এই ঘোষণা করেন যে, এটা অন্যায় ও পাপ তাহলে সেটাই উত্তম, তবে কিছু সংখ্যক মুসলমান তার জানাযার সালাত আদায় করবে।

 

কিতাব মাজ্‌মু’ ফাতাওয়া ওয়া মাক্বালাত মুতানাব্বিয়া্‌ (শায়খ আব্দুল আযিয ইবনে বায- ১৩শ পাঠ, পৃষ্ঠা ১২২। [৫]

 

তথ্যসূত্র

[১] http://dictionary.reference.com/browse/suicide

[২] http://www.sunnah.com

[৩] http://www.askislampedia.com/Quran

[৪] http://www.sunnah.com

[৫] http://islamqa.info/en/ref/12316

394 Views
Correct us or Correct yourself
.
Comments
Top of page